Dealership

 

বাইবিট লিমিটেড

বাইবিট ~ দেশের প্রযুক্তি, মানুষের জন্য

 

বাইবিট ~ দেশের প্রযুক্তি, মানুষের জন্য

 

 

 

বাইবিট লিমিটেডের সাথে ডিলারশিপে আগ্রহী হলে নীচের যোগাযোগ ফর্মটি পূরণ করুন।

 

 

ফর্মটির পিডিএফ ডাউনলোড করুন  

 

লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য

পাশ্চাত্যে মানুষের জীবনের মান উন্নয়নে বিজ্ঞানী ও প্রযুক্তিবিদেরা নিত্য নূতন উদ্ভাবন করে যাচ্ছেন। জীবনের বিভিন্ন দিকে সুফল দেয়ার পাশাপাশি চিকিৎসা পদ্ধতিতেও অবিশ্বাস্য সব প্রযুক্তি উদ্ভাবিত হয়েছে। তবে আমাদের দেশের সাধারণ মানুষকে এসব আধুনিক প্রযুক্তির সুবিধা দিতে হলে তার প্রযুক্তি দেশেই নিজস্বভাবে উন্নয়ন করা প্রয়োজন। উদাহরণস্বরূপ, শরীরের ভিতরের হাড়ের গঠন ও হৃদপিন্ডের ক্রিয়া দেখার জন্য এক্স-রে ও ইসিজি যন্ত্রের আবিষ্কার হয় যথাক্রমে ১৮৯৫ ও ১৯০২ সালে। পাশ্চাত্যের মানুষ এসব যন্ত্রের সুফল পেলেও বাংলাদেশ বা তৃতীয় বিশ্ব একশত বছর পরও এর সুফল নিতে ব্যর্থ।

এ অনুধাবন থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগে ড. সিদ্দিক-ই-রব্বানী ১৯৭৮ থেকে নিরলস গবেষণা করে চলেছেন ও গবেষণার ফলাফল কীভাবে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছানো যায় সে লক্ষ্যে স্থির থেকে চেষ্টা করে যাচ্ছেন। বিভিন্ন সময়ে অনেক মেধাবী ও তরুণ ছাত্র গবেষকেরা তার সাথে কাজ করে এ লক্ষ্যে একটু একটু করে অবদান রেখে গেছেন। তাদের সফল গবেষণার প্রেক্ষিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০০৮ সালে বায়োমেডিকেল ফিজিক্স এন্ড টেকনোলজি বিভাগ সৃষ্টি হলে এ বিভাগকে গড়ে তোলার জন্য এর প্রথম চেয়ারপার্সন হিসেবে ড. রব্বানী দায়িত্ব পান। গবেষণায় ব্যূৎপত্তি আনা ও গবেষণার অবদান জনগণের কাছে নিয়ে যাবার প্রচেষ্টাটি এর পর থেকে বিশেষ গতি পায়।

ড. রব্বানীর নেতৃত্বে এক ঝাঁক নিবেদিতপ্রাণ তরুণ দেশের মানুষের স্বাস্থ্য-সমস্যা গুলোকে প্রযুক্তির মাধ্যমে সমাধানের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে নিরলসভাবে। এর কিছু সুফল ইতিমধ্যে মানুষ পেয়েছে, এমনকি বিদেশেও এ বিভাগের উদ্ভাবিত প্রযুক্তি পৌঁছে গেছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে তাদের নিজস্ব প্রযুক্তিতে উদ্ভাবিত ও উন্নয়ন করা চিকিৎসা যন্ত্রগুলিকে স্থানীয়ভাবে তৈরি করে জনগণের কাছে সুলভে পৌছে দেয়ার জন্য এ তরুণদেরকে সাথে নিয়ে ২০১৩ সালে তিনি প্রতিষ্ঠা করেন ‘বাইবিট লিঃ’। ‘বাংলাদেশ ইনষ্টিটিউট ফর বায়োমেডিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড অ্যাপ্রোপ্রিয়েট টেকনোলজি’ নামে আগে নেয়া একটি উদ্যোগের উত্তরসূরী হিসেবে বাইবিট লিঃ এর জন্ম। এর আরও বিশেষত্ব হচ্ছে যে বাইবিট নিবন্ধিত হয়েছে দেশের ‘কোম্পানী লিমিটেড বাই গ্যারান্টী’ আইনের আওতায়। এ কোম্পানীর কোন মালিক বা অংশীদার নেই, এবং এর মুনাফা কোন ব্যক্তিবিশেষ নিতে পারবে না। অর্থাৎ জনগণের কল্যাণই এ কোম্পানীর একমাত্র লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য।

এ উদ্দেশ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োমেডিকেল ফিজিক্স এন্ড টেকনোলজি বিভাগের সাথে বাইবিটের একটি স্মারক সমঝোতাও হয়েছে। বস্তুতঃ আমরাই দুটি প্রতিষ্ঠানের সাথে যুক্ত।

 

নিজেদের তৈরি চিকিৎসা যন্ত্রগুলির মধ্য থেকে এখন পর্যন্ত যেগুলো মানুষের কাছে পৌছে দেয়া সম্ভব হয়েছে সেই প্রযুক্তিগুলির সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত বিবরণ জানতে ডাউনলোড করুন  

 

বাইবিটের সমস্ত প্রোডাক্টের সর্বশেষ ইস্তেহার পেতে ক্লিক করুন

 

Translate »